শিরোনাম

নাসিরনগর চাতলপাড় ডিগ্রি কলেজে ভবন নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ

নাসিরনগর প্রতিনিধি | শুক্রবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০২১ | পড়া হয়েছে 157 বার

নাসিরনগর চাতলপাড় ডিগ্রি কলেজে ভবন নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর চাতালপাড় ডিগ্রী কলেজের ভবন নির্মানে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ ওমর আলী ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে সহকারী শিক্ষা প্রকৌশলীসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
অধ্যক্ষের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার সহকারী প্রকৌশলীসহ সংশ্লিষ্টরা সরজমিনের কলেজের ভবন পরিদর্শন করেন এবং অভিযোগের সত্যতা পান। এদিকে প্রকৌশলীর পরিদর্শনের পর ভবনের প্লাষ্টারসহ ঢালাইয়ের কাজ মেরামত করে দিবেন বলে কলেজ কর্তৃপক্ষকে আশ্বাস দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার।

কলেজ সূত্রে জানা গেছে, চাতলপাড় ডিগ্রি কলেজে প্রায় প্রায় ৮৫ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি একতলা ভবন নির্মানের জন্য দরপত্র আহবান করে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর। ভবনের নির্মান কাজটি পায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মেসার্স আসাদ এন্টারপ্রাইজ নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।

গত বছরের ৩০ জানুয়ারী নির্মাণ কাজ শুরু করার কথা থাকলেও কাজ শুরু হয় এ বছরের শুরুর দিকে। এক বছরেও শেষ হয়নি নির্মান কাজ। এর মধ্যেই ভবন নির্মাণে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

অধক্ষের মোঃ ওমর আলীর লিখিত অভিযোগে বলা হয়,একতলা ভবনের নির্মাণ কাজ হয়েছে খুবই নিম্নমানের। ভবনের বিভিন্ন রুম ও বারান্দার ফ্লোরের ঢালাইয়ের পুরত্ব খুবই কম। নির্মানকাজে ব্যবহার করা হচ্ছে নিম্নমানের নির্মান সামগ্রী। ভবনের প্লাষ্টারের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে মাটিযুক্ত বালু। ছাদের সিলিংয়ে দেয়া পলিথিন না উঠিয়ে প্লাষ্টার করা হচ্ছে। ঢালাইয়ের সময় ভ্রাইভেটর ঠিকমতো ব্যবহার না করায় ভবনের সিঁড়ি, ছাদ এবং কলামের বিভিন্ন স্থানে ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছে।

এ ব্যাপারে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স আসাদ এন্টারপ্রাইজের কর্ণধার মোঃ আসাদ ভবন নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, হয়তোবা শ্রমিকরা কাজে ফাঁকি দিয়েছে। তিনি বলেন, প্লাষ্টার খসে পড়ার বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে চাতলপাড় ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ ওমর আলী বলেন, সহকারী শিক্ষা প্রকৌশলীসহ ঠিকাদার ভবন পরিদর্শন করে আমার অভিযোগের সত্যতা পেয়েছেন। পরে ঠিকাদার ভবনের প্লাষ্টারসহ ঢালাইয়ের কাজ মেরামত করে দিবেন বলে কলেজ কর্তৃপক্ষকে আশ্বাস দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) হালিমা খাতুন বলেন, অভিযোগের কথা শুনেছি। শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১