শিরোনাম

ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তৃনমূলের ভোটে প্রথম হয়েও দলীয় মনোনয়ন পাননি চার প্রার্থী

স্টাফ রিপোর্টার | সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ | পড়া হয়েছে 519 বার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তৃনমূলের ভোটে প্রথম হয়েও দলীয় মনোনয়ন পাননি চার প্রার্থী

আগামী ৫ জানুয়ারি পঞ্চমধাপে অনুষ্ঠিতব্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থী বাছাইয়ে তৃনমূলের ভোট নিয়ে প্রার্থীদের মধ্যে অসন্তোষ বিরাজ করছে। তৃনমূলের ভোটে প্রত্যেক ইউনিয়নের জন্য ৩জন প্রার্থী বাছাই করা হয়। তবে ভোটে প্রথম হয়েও কেউ কেউ দলীয় মনোনয়ন পাননি, আবার ভোটে তিনজনের মধ্যে নাম না আসলেও কয়েকজন মনোনয়ন পেয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন প্রার্থীরা।

তৃনমূলের নেতা-কর্মীদের মতামত উপেক্ষা করে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় কয়েকটি ইউনিয়নে দলীয় প্রার্থীরা হেরে যেতে পারেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এ নিয়ে ভেতরে ভেতরে অনেকের মাঝে ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করলেও মুখ খুলে কেউ কেউ বলতে চাইছেন না।

দলীয় নেতা-কর্মীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সদর উপজেলার ১১ ইউনিয়নে দলীয় প্রার্থী বাছাইয়ে গত ২৯ নভেম্বর তৃনমূলের ভোটের আয়োজন করে সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ। যে সকল ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে চারজন প্রার্থী ছিলো সেসব ইউনিয়নের জন্য প্রার্থী বাছাইয়ে ভোট হয়নি। চার প্রার্থীর নামই কেন্দ্রে পাঠানো হয়। আর যে সকল ইউনিয়নে চারজনের বেশী প্রার্থী ছিলে সেসব ইউনিয়নের জন্য তৃনমূলের ভোটের মাধ্যমে তিনজনের নাম বাছাই করা হয়।

সদর উপজেলার মজলিশপুর ইউনিয়নে তৃনমূলের ভোটে প্রথম হয়েছিলেন বশির আহমেদ মানিক। এই ইউনিয়নে তিনি দলীয় মনোনয়ন পাননি। মনোনয়ন পেয়েছেন ভোটে দ্বিতীয় হওয়া বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ তাজুল ইসলাম।

সুহিলপুর ইউনিয়নে তৃনমূলের ভোটে প্রথম হয়েছিলেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজাদ হোসেন হাজারী আঙ্গুর। এই ইউনিয়নে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন ভোটে তৃতীয় হওয়া সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আবদুর রশিদ ভূইয়া। বাসুদেব ইউনিয়নে তৃনমূলের ভোটে প্রথম হয়েছিলেন নূরে আলম। এই ইউনিয়নে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন ভোটে পঞ্চম হওয়া বর্তমান চেয়ারম্যান মোহাম্মদ এম.আলম ভূইয়া।

তালশহর পূর্ব ইউনিয়নে তৃনমূলের ভোটে প্রথম হয়েছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু বকর ছিদ্দিক। এই ইউনিয়নে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন ভোটে তৃতীয় হওয়া আবদুস সালাম।

এছাড়াও নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে জয়লাভ মোঃ নাজমুল হক।

এ ব্যাপারে তালশহর পূর্ব ইউনিয়ন পরিষদ থেকে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী আবু বকর ছিদ্দিক বলেন, তৃনমূলের ভোটে প্রথম হয়েও কেন দলীয় মনোনয়ন পেলাম না তা আমার বোধগম্য নয়। তিনি বলেন, দলীয় সিদ্ধান্তের উপরতো আমাদের কোন হাত নেই।

এ ব্যাপারে সুহিলপুর ইউনিয়ন পরিষদে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী আজাদ হোসেন হাজারী আঙ্গুর বলেন, চেয়ারম্যান হিসেবে গত ৫ বছর জনগনের পাশে ছিলাম। আগামী নির্বাচনের প্রার্থী বাছাইয়েও তৃনমূলের ভোটে প্রথম হয়েছি, তবে কেন মনোনয়ন পেলাম না তা আমার বোধগম্য নয়।

এ ব্যাপারে নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদে দলীয় মনোনয়ন পাওয়া মোঃ নাজমুল হক বলেন, গত নির্বাচনে আমি বিদ্রোহী নয়, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হয়েছিলাম।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা আল-মামুন সরকার বলেন, ‘আওয়ামী লীগের তৃণমূল আর সাধারন জনগণের মতামত এক বিষয় না। ভোটে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা জয়ী হয়ে আসবেন।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘জেলা থেকে প্রার্থীদের যে তালিকা পাঠানো হয়েছে তাতে কার কি অবস্থান সেটা উল্লেখ করে দেওয়া হয়। অর্থাৎ তৃণমূলের মতামত তুলে ধরা হয়। কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ এই তালিকার পাশাপাশি বিভিন্নভাবে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে চুড়ান্ত মনোনয়ন দিয়েছেন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১